বাংলাদেশ শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১

শেরপুরের শিশু ও বসন্ত বরণ উৎসব পালিত

দৈনিক প্রথম সংবাদ

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২৪, ০৭:৫১ পিএম

শেরপুরের শিশু ও বসন্ত বরণ উৎসব পালিত

প্রাণের উচ্ছলতা নিয়ে শিশু ও বসন্ত  বরণ পালিত হলো সীমান্ত জেলা শেরপুর নালিতাবাড়ী পৌর শহরের বিদ্যানিকেতন সেজুতি অঙ্গনে। পাহাড়ি জনপথ নালিতাবাড়ী উপজেলায় বাঙালি সংস্কৃতির সকল পার্বণ পালনে এগিয়ে থাকা শিশুদের বিদ্যাপীঠ বলে পরিচিত এই বিদ্যানিকেতনে বসন্ত শুরুর একদিন আগেই পালিত হলো বসন্ত উৎসব।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় সেজুতি অঙ্গনে বসন্ত বরণ উৎসবের পাশাপাশি ছিল স্কুলে নতুন শিশু শিক্ষার্থীদের বরণ পর্ব। উৎসবে যাপিত জীবনের সীমাবদ্ধ গণ্ডি পেরিয়ে গাওয়া হয় উদাসী বসন্তের গান।

আয়োজনে ছোট্ট শিশুরা মুখে আবির মেখে কড়া লাল পেড়ে হলুদ শাড়ি, খোঁপায় গাঁদাফুল আর ছেলেরা লাল হলুদের পাঞ্জাবি পড়ে বসন্ত সাজে  উৎসবের শুভ সূচনা করে। বসন্ত বরণে পোষাকে শিক্ষকরাও ছিলেন বাহারি রঙের বাহারে। বসন্তের আবাহন পাঠ করেন শহীদ মুক্তিযোদ্ধা কলেজের প্রভাষক স্বপ্না চক্রবর্তী।
সকালে শিশুরা লাল আর বাসন্তী রঙের সাজে সেজুতি অঙ্গন থেকে শুরু করে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রায় যুক্ত হন নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াজ কুরুনি, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মনির, সিনিয়র সাংবাদিক সামেদুল ইসলাম তালুকদার, সাংবাদিক শাহাদাত তালুকদার প্রমুখ।সুর, ছন্দ, কবিতা আর কথা-সব মিলিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয় ‘আজি বাঙালি সংস্কৃতির শ্রেষ্ঠ ঋতু, ঋতুরাজ বসন্ত জাগ্রত’। অনুষ্ঠানে বসন্ত কথন পর্বটি ছিল চমৎকার।  

এই পর্বে বক্তব্য উপস্থাপন করেন নবরূপে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর সভাপতি জয়জিৎ দত্ত শ্যামল, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ তৌহিদুল ইসলাম খোকন, অভিভাবক সাইদুল ইসলাম, শিক্ষক মাহমুদুল আহসান, প্রভাষক স্বপ্না চক্রবর্তী, লিটন, ইসমাইল হোসেন সিরাজী প্রমুখ। প্রতিষ্ঠানের  প্রধান মনিরুজ্জামান বলেন, আকাশ সংস্কৃতির এ সময়ে বাঙালি সংস্কৃতিকে ধরে রাখাই কঠিন হয়ে গেছে। শিশুদের নিজস্ব সংস্কৃতি চেনাতেই এসব আয়োজন।

Link copied!

সর্বশেষ :