বাংলাদেশ সোমবার, ২২ জুলাই, ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

বছরের শুরুতেই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী, হুঁশিয়ারি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

দৈনিক প্রথম সংবাদ ডেস্ক

প্রকাশিত: মার্চ ১৯, ২০২৪, ১১:৪১ পিএম

বছরের শুরুতেই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী, হুঁশিয়ারি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

বছরের প্রথম থেকেই শুরু হয়েছে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব

দেশে ডেঙ্গুরোগের প্রাদুর্ভাব শুরু হয়েছিল ২০০০ সালে। পরবর্তী ২৩ বছরে দেশে যত মানুষ ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছে, তার চেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে মাত্র এক বছরে- ২০২৩ সালে। সেই ২০২৩ সালের অর্থাৎ, গত বছরের প্রথম তিন মাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুকে ছাড়িয়ে গেছে চলতি বছরের আড়াই মাসে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ও প্রাণহানির সংখ্যা। এমন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব কমাতে আগে থেকেই সতর্ক থাকতে হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, ২০২৩ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত রোগী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন ৩ লাখ ২১ হাজার ১৭৯ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন ১৭০৫ জন।

অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, দেশে ২০০০ সাল থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত ২৩ বছরে ডেঙ্গুতে মারা গেছেন ৮৬৮ জন। এই সময়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ২ লাখ ৪৩ হাজার ৭৪৮ জন। অর্থাৎ, ২০২৩ সালে আগের ২৩ বছরের দ্বিগুণ মৃত্যু হয়েছে ডেঙ্গু রোগে।

তথ্যমতে, ২০২৩ সালের প্রথম তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ) ডেঙ্গুতে মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ছিলেন ৮৪৩ জন।
এদিকে চলতি বছরে প্রথম তিনমাসের এখনো আরও ১১ দিন বাকি। এর মধ্যেই হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গু রোগী ছাড়িয়েছে দেড় হাজার। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ১৮ মার্চ সোমবার পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৫৬৬ জন। এর মধ্যে রাজধানী ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন ৫২৭ জন এবং ১০৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন ঢাকার বাহিরে। মারা যাওয়াদের মধ্যে ৭ জন ঢাকায় এবং ঢাকার বাইরে মারা গেছেন ১৩ জন।

এমন পরিস্থিতিতে ডেঙ্গুর আরও ভয়াবহতার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ডেঙ্গু বিষয়ে আজ মঙ্গলবার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেনের সভাপতিত্বে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগের প্রাদুর্ভাব হ্রাসকরণ ও চিকিৎসা সেবা সুসমন্বিতকরণ’ বিষয়ক একটি বিশেষ সভা হয়েছে।

এসময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধে এক দিকে এডিস মশা নির্মূল করতে হবে, অন্যদিকে প্রাদুর্ভাব কমাতে আগে থেকেই সতর্ক থাকতে হবে। দেশের সব হাসপাতাল রোগীর চিকিৎসায় প্রস্তুত থাকতে হবে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. রোকেয়া সুলতানা, ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এবং ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবিএম খুরশীদ আলম প্রমুখ।

Link copied!

সর্বশেষ :