বাংলাদেশ সোমবার, ২২ জুলাই, ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শিকার খামখেয়ালিপনায় নবজাতকের মৃত্যু

দৈনিক প্রথম সংবাদ ডেস্ক

প্রকাশিত: এপ্রিল ২৪, ২০২৪, ০৭:৪৭ পিএম

পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শিকার খামখেয়ালিপনায় নবজাতকের মৃত্যু

পটুয়াখালীর মহিপুরে পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শিকার অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়- রোববার (২১ এপ্রিল) রাতে উপজেলার মহিপুর থানার ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের মিরপুর গ্রামের শাহআলমের মেয়ে শারমিন বেগমের সন্তান প্রসব বেদনা শুরু হলে পরিবারের লোকজন ওই প্রসূতিকে তাৎক্ষণিক নিকটস্থ মহিপুর কেয়ার মডেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে গাইনি বিভাগে ডা. ফারহানা রহমান সুমীর শরণাপন্ন হন। তিনি রোগীকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে তার ও তার গর্ভের সন্তানের অবস্থা সংকটাপন্ন দেখে তাকে কলাপাড়া উপজেলা কমপ্লেক্সে রেফার্ড করেন এবং সেখানে ভর্তি থেকে রোগীকে সিজারের পরামর্শ দেন।

স্বজনদের সূত্রে আরও জানা যায়, পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শিকা নূরজাহান বেগম প্রসূতি শারমিনের বাচ্চা নরমালে প্রসবের কথা বলে ৫ হাজার দর কষলে পরে ৩ হাজার টাকায় রাজি হন। দীর্ঘ ৫ ঘণ্টা নরমালে বাচ্চা প্রসবের চেষ্টা করে সে ব্যর্থ হলে প্রসূতির পরিবারের লোকজন প্রসূতিকে সিজারে নিতে চাইলে তিনি প্রসূতি নরমাল ডেলিভারির জন্য শারমিনকে মারধর করেন বলে ভুক্তভোগীর পরিবারে অভিযোগ রয়েছে। পরবর্তীতে রাত ১২টার দিকে তাহার ভুল ও অনভিজ্ঞ প্রচেষ্টার কারণে একটি মৃত্যু মেয়ে সন্তান প্রসব হয়। অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণের ফলে প্রসূতি এখন মৃত্যু পথযাত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শিকা নূরজাহান বেগম একই স্থানে দীর্ঘ ২৮ বছর থেকে বীরত্বের আরও বহু এরকম ঘটনা ঘটিয়েছেন।এ বিষয়ে পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শিকা নুরজাহান বলেন, গর্ভ থেকে মৃত বাচ্চা প্রসব হয়েছে। প্রত্যেকটা প্রসবই আমি একটি ফি নিয়ে থাকি। সেই অনুপাতে তাদের সঙ্গে তিন হাজার টাকা চুক্তিতে কাজ করেছি।ডাক্তার ফারজানা রহমান সুমি বলেন, রোববার বিকেলে রোগী আমার কাছে আসলে আমি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ক্রিটিক্যাল মোমেন্ট দেখতে পাই। আমি তাদের কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে সিজারের পরামর্শ দিয়েছি।

ফ্যামিলি প্লানিং মেডিকেল অফিসার মো. মেহেদী হাসান রনি বলেন, রোগীর অবস্থা ক্রিটিক্যাল হলে তিনি আমাদের অবগত করবে, সে যেটা করেছে এটা চরম অপরাধ, বিষয়টি খতিয়ে দেখে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


 

Link copied!

সর্বশেষ :